নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয়

আমাদের আজকের আলোচনার বিষয় নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় সম্পর্কে। বেশিরভাগ মানুষ জানে না নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি? কিভাবে নগদ পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করতে হয় এই বিষয়টি নিয়ে আমাদের আজকের পোস্ট সাজানো হয়েছে। বর্তমানে একটি জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম হচ্ছে নগদ। এবং নগদ  মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেমের চাইতে সহজ ও বটে।

 তাছাড়া নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম হচ্ছে একটা সরকারি ব্যাংকিং সিস্টেম আর এ কারণে নগদ মোবাইল ব্যাংকিং সিস্টেম সিস্টেম হচ্ছে নিরাপদ ও জনপ্রিয় একটি ব্যাংকিং সিস্টেম।  এ ব্যাংকিং সিস্টেমের জনপ্রিয়তা ক্রমেই বেড়েই চলেছে কিন্তু  আমাদের অনেকেই জানিনা যে কিভাবে নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি। সুতরাং আমরা এখন নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি সে সম্পর্কে আলোচনা করব। চলুন দেখে নেয়া যাক নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয়  কি এবং সেই সাথে আমরা নগদ সম্পর্কে অন্যান্য বিষয়গুলো একটু জেনে নিব

নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় 

আপনার যদি একটা নিজস্ব নগদ একাউন্ট থাকে এবং আপনি যদি সেই নগদ একাউন্টের পিন নম্বর  বা পাসওয়ার্ড ভুলে যান। তখন আপনার  নগদ একাউন্টের পিন নম্বর পুনরুদ্ধার করা খুবই  ইজি। আপনি মাত্র দুই মিনিটের মধ্যে নগদ পাসওয়ার্ড বা পিন নম্বর পুনরুদ্ধার করতে পারবেন। আসুন দেখে নেয়া যাক নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি এই সহজ নিয়মটি। 

আপনার নগদ একাউন্ট পুনরুদ্ধার করতে হলে আপনাকে যা করতে হবে তা হল, আপনার নগদ সর্বশেষ ব্যালেন্স, আপনার জন্ম তারিখ এবং আপনার পিতার নাম এই তথ্যগুলো নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় বিষয়সমূহের মধ্যে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যা আপনাকে সঠিক তথ্যগুলো দিতে হবে। 

অতঃপর আপনাকে ১৬১৬৭ নম্বরে কল করতে হবে। তখন আপনাকে কাস্টমার কেয়ার থেকে  আপনার নগদের সর্বশেষ ব্যালেন্স, আপনার জন্ম তারিখ এবং আপনার পিতার নাম এই তথ্যগুলো আপনার কাছ থেকে জানতে  চাবে তখন  আপনাকে এই তথ্যগুলো সঠিকভাবে দিতে হবে।  যদি  তথ্যগুলো সঠিকভাবে দেন তখন আপনাকে তারা নতুন একটা পিন নম্বর সেট করে দেবে । আপনি চাইলে পরবর্তীতে আপনার পছন্দ মতো নতুন পিন বা পাসওয়ার্ড দিতে পারবেন। এটাই হলো নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয়। 

নগদ কাস্টমার কেয়ার বা হেল্পলাইন নম্বর

 আপনার যদি একটা নগদ একাউন্ট থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাকে নগদ কাস্টমার কেয়ার বা হেল্পলাইন নম্বর জেনে রাখা  প্রয়োজন। কেননা নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি এ ছাড়াও আপনি নগদ এর যেকোনো সমস্যা বা যেকোন বিষয় সম্পর্কে  নগদ কাস্টমার কেয়ার  নম্বরে ফোন করে জানতে পারবেন। তাই নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি এবং যে কোন প্রয়োজনে আপনি কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করতে পারবেন যদি আপনার নগদ কাস্টমার কেয়ার বা হেল্পলাইন নম্বর জানা থাকে। এই নগদ কাস্টমার কেয়ার বা নগদ হেল্পলাইনটা হল ১৬১৬৭ 

এছাড়াও আপনাকে নগদ কাস্টমার কেয়ারের ই-মেইল নাম্বার জেনে রাখা  প্রয়োজন। আপনি চাইলে ই-মেইল নম্বরে প্রবেশ করে নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি সে সম্পর্কেও জানতে পারেন এবং নগদ কাস্টমার কেয়ারের নম্বর বা হেল্পলাইন ভুলে গেলে সে সম্পর্কে  ও জানতে পারবেন। ই-মেইল নম্বর হলো: info@nagad. com. bd  

নগদ অ্যাপ বা ফোন দিয়ে নগদ পিন কোড পুনরুদ্ধার করার উপায় বা পদ্ধতি

আপনি চাইলে নগদ অ্যাপ দিয়ে নগদ সম্পর্কে ও  অনেক তথ্য জানা এবং অনেক সেবা পেতে পারেন সেজন্য আপনাকে নগদ অ্যাপটি ব্যবহার করা সম্পর্কে জানতে হবে। এবং নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি  তাও জানতে পারবেন। 

 প্রথমে আপনাকে নগদ একটি ডাউনলোড করতে হবে অথবা আপনার ফোনে নগদ একটি ইন্সটল করতে হবে। তারপর পিন নম্বর বা পাসওয়ার্ড দিয়ে  অ্যাপসটির ভিতর প্রবেশ করতে হবে এভাবেই আপনার নগদ অ্যাপটি চালু হয়ে যাবে। আপনার যদি নগদ  অ্যাপসটি না থাকে তাহলে আপনি আপনার মোবাইল ফোনের মাধ্যমেও নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয়  তা জানতে পারবেন।  *১৬৭# টাইপ করে, রিসিভ বাটনে ক্লিক করুন এরপর যেই সিমে আপনার নগদ একাউন্ট খোলা আছে সেই সিম  দিয়ে কল করুন। কল করার পর আপনার ফোনে ১ থেকে ৮  পর্যন্ত  মোট ৮  অপশন আসবে।

এখন আপনি যদি আপনার পিন কোড পুনরুদ্ধার করতে চান তাহলে ৮ নম্বর অপশনে ক্লিক করুন তারপর ২ টা অপশন আসবে 1, Forgot pin     2,Change pin তখন আপনি ১ নম্বর অপশনে ক্লিক করবেন। তখন আপনার কাছে NID কার্ড এর নম্বর চাইবে এবং NID নম্বর দেয়ার পরে আপনার ফোনে একটা OTP আসবে তখন আপনি OTP টি দিবেন ।অতঃপর নগদ থেকে আপনাকে একটা পিন  বা পাসওয়ার্ড দেয়া হবে  তখন আপনি সেই পাসওয়ার্ডটি  বা  পিনটি দিয়ে একাউন্টে প্রবেশ করুন। এবং যদি চান তাহলে নতুন  পিন সেট করুন। 

নগদ একাউন্টের পিন  বা পাসওয়ার্ড সুরক্ষিত রাখবেন  যেভাবে (নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয়)

যেহেতু আপনি এই একাউন্টের মাধ্যমে অর্থ আদান প্রদান করবেন তাই আপনাকে এই নগদ একাউন্টের পিন বা পাসওয়ার্ড   গোপন বা সুরক্ষিত রাখা প্রয়োজন। সুরক্ষিত রাখার জন্য আপনাকে কিছু উপায় বা পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। তাহলে আপনি আপনার  নগদ একাউন্টের পিন বা পাসওয়ার্ড এর সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারবেন। 

  • প্রথমত আপনাকে আপনার নগদ একাউন্টের পিন বা পাসওয়ার্ড অন্য কারো সাথে শেয়ার করবেন না।
  •  পিন নম্বর ভালো করে মুখস্থ করে রাখবেন এমনভাবে মুখস্থ করবেন যেন ভুলে না যান।
  • আপনি আপনার পিন নম্বর লিখে রাখতেও পারেন
  •  আপনার মুখস্থ করা পিন বা পাসওয়ার্ড নম্বর ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাহলে আপনি অন্য কোথাও নিরাপদ স্থানে সংরক্ষণ  করুন।
  • আপনার পাসওয়ার্ড বা পিন নম্বর কখনো ফোনে সেভ করে রাখবেন না। আপনি যদি আপনার নগদ অ্যাপ এ প্রবেশ করেন তাহলে বের হওয়ার সময় অ্যাপসটি লগ আউট করুন।
  •  এছাড়াও আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট এর সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য  পিন নম্বরটি পুনরায় সেট করুন।
  •  আপনি যদি  বুঝতে পারেন যে আপনার পাসওয়ার্ড বা  পিন নাম্বার কেউ জানতে পেরেছে তাহলে  তাৎক্ষণিকভাবে আপনার পাসওয়ার্ড বা পিন নম্বর পুনরায় সেট করুন।

 

 এভাবে আপনি আপনার একাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারেন। তবে নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয়  কি এর আগে আপনাকে পাসওয়ার্ড সুরক্ষিত রাখার নিয়ম  বা পদ্ধতিগুলো জানতে হবে পাসওয়ার্ড শুধু নগদ একাউন্টের জন্য নয়, সকল অ্যাকাউন্টের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আমাদের যত সম্ভব পাসওয়ার্ড গোপন বা সংরক্ষিত করে রাখা প্রয়োজন। 

নগদ একাউন্টের কিছু সুবিধা

বর্তমানে যেসব অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে টাকা আদান প্রদান করা হয়। তাদের মধ্যে নগদে সবচাইতে সহজ ও কম খরচে টাকা আদান প্রদান করা হয় এবং নগদ হচ্ছে একটা সরকারি সংস্থা সুতরাং নগদের মাধ্যমে টাকা আদান প্রদানের  নিরাপত্তা বেশি। নগদ একাউন্টে টাকা আদান প্রদান খরচ হাজারে অন্যান্য একাউন্ট এর চাইতে খুবই কম। নগদে হাজারে  ৯.৯৯  টাকা কাটা হয় যা অন্যান্য একাউন্টের চাইতে কম, আর এটাই হলো নগদ একাউন্টের অন্যতম একটা সুবিধা। 

পরিশেষে আমার কিছু কথা –  নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় কি তার সম্পর্কে উপরে আলোচিত হয়েছে আর এই আলোচনা থেকে নিশ্চয়ই আপনি  নগদ একাউন্ট সম্পর্কে ভালো একটা ধারণা পেয়েছেন। অতএব আপনি আপনার যে কোন অ্যাকাউন্ট  পাসওয়ার্ড সম্পর্কে সচেতন থাকবেন। কেননা বর্তমানে অনেক ধরনের হ্যাকার এবং দুষ্কৃতিকারীগণ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই আপনি আপনার এই গুরুত্বপূর্ণ  অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য এবং নিরাপদে টাকা আদান প্রদানের জন্য আর পাসওয়ার্ড বা পিন নম্বরটি  সবসময়ের জন্য সংরক্ষিত করে রাখবেন। সন্দেহ জনক ব্যক্তিদের কাছ থেকে গোপন করে রাখবেন (একটু অসুস্থ বড় ধরনের বিপদের কারণ হতে পারে)। আশা করি আজকের পোস্ট নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় পড়ার পর এ সম্পর্কে আর কোন প্রশ্ন থাকবে না। নগদ একাউন্টের পিন নাম্বার ভুলে গেলে করণীয় পোস্টটি আপনার উপকারে আসলে প্রিয়জনের সাথে শেয়ার করতে পারেন। 

Leave a Comment